ব্রেকিংঃ অবশেষে নিশ্চিতভাবেই বিপিএলের যে দলের হয়ে খেলতে যাচ্ছেন আশরাফুল!

বেশ কিছুদিন ধরেই ক্রিকেটপাড়ায় গুঞ্জন রুটেছে বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলতে যাচ্ছেন আশরাফুল। তবে এবার আর সেই বিষয়টি গুঞ্জন নয়, সত্য হতে যাচ্ছে।

.

.

সিলেট সিক্সার্সের সিইও ইয়াসির ওয়াবেদের সাথে ক্রিকেটার আশরাফুলের বেশ ঘনিষ্ঠতা রয়েছে। দু’জনের সম্পর্কটাও বেশ ভাল। সিলেট সিক্সার্সের দরজা তাই আশরাফুলের জন্য খোলা বলে মনে করছেন তার সমর্থকেরা।

.

.

তাছাড়া গত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে আশরাফুল রানে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন। ভালো ইনিংসও খেলেছেন। তাই সব বিবেচনায় সিলেট সিক্সার্সে তিনি খেলতে পারেন। সিক্সার্সের ম্যানেজমেন্টও আশরাফুলকে দলে নেওয়ায় আগ্রহী বলে জানা গেছে।

Read More- জো রুট ৮৩ লাখ, কোহলী ৭০.৫ লাখ, ডু প্লুসিস ৩৩.৩ লাখ, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ২২ লাখ, সাকিব ৪ লাখ-বেতনের তালিকার শীর্ষে ইংল্যান্ড টেস্ট ও ওয়ানডে দলের অধিনায়ক জো রুট ও এউইন মরগান। বাংলাদেশি মুদ্রায় উভয়ের মাসিক বেতন ৮২ লাখ ৭ হাজার টাকা। তাদের এক মাসের বেতনের প্রায় অর্ধেক বেতন পান সারা বছর জুড়ে সাকিব এবং মাশরাফি।

জো রুট এবং এইন মরগ্যান: ইংল্যান্ডের টেস্ট এবং ওয়ানডে দলের অধিনায়ক জো রুট আর এইউন মরগ্যান সমান বেতন পান। তাদের মাসিক আয় বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৩ লাখ টাকা।

বিরাট কোহালি: ভারতীয় অধিনায়ক এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয়। আয়ের দিক থেকেও তিনি অধিনায়কদের তালিকায় দুই নম্বরে। বর্তমানে কোহালির মাসিক বেতন বাংলাদেশি মুদ্রায় ৭০.৫ লাখ টাকা।

টিম পেইন: ক্রিকেট অস্টেলিয়ার তরুণ অধিনায়ক। এখনও পর্যন্ত বড় কোনো সাফল্য ধরা না দিলেও ধনী বোর্ড হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই তার বেতনের অঙ্কটাও বেশ বড়। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশি মুদ্রায় মাসিক ৬৯ লাখ টাকার মতো বেতন পান।

কেন উইলিয়ামসন: অনেক বড় তারকা হওয়া সত্ত্বেও নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কের রোজগার কিন্তু অন্য অনেকের থেকে বেশ কিছুটা কম। কেনকে তার দেশের ক্রিকেট বোর্ড মাসে মাত্র ৩৪.৫ লাখ টাকা দেয়।

ফাফ ডুপ্লেসিস: দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক কিন্তু প্রথম ৩ জনের থেকে বেশ কম বেতন পান। তার মাসিক বেতন বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩০.৩ লাখ টাকা।

দীনেশ চান্ডিমাল এবং অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ:শ্রীলঙ্কার টেস্ট দলের অধিনায়ক চান্ডিমাল। অন্যদিকে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে শ্রীলঙ্কার নেতা ম্যাথিউজ। দুজনেই মাসিক বেতন পান বাংলাদেশি মুদ্রায় ২২ লাখ টাকার কিছুটা বেশি।

জেসন হোল্ডার: আগের সেই দিন আর নেই। টি-টোয়েন্টি বাদে বাকি ফরম্যাটে ক্রমেই পিছিয়ে পড়ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই দলের অধিনায়ক হোল্ডারের মাসিক আয় অন্য দেশের থেকে কম। তিনি মাসিক বেতন পান ১৮.৭৫ লাখ টাকা।

সরফরাজ আহমেদ: পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক। দেশকে বেশ কিছু শিরোপা উপহার দিলেও রোজগারের দিক দিয়ে তিনি অন্যান্যদের থেকে অনেকটাই কম বেতন পান। তার মাসিক বেতন বাংলাদেশি মুদ্রায় মাত্র সাড়ে ৬ লাখ টাকার মতো!

গ্রেমি ক্রেমার: দারিদ্র আর দুর্নীতিতে জর্জরিত জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট। এমন খারাপ অবস্থা থেকে দলকে বের করে আনার স্বপ্নে কিছু ক্রিকেটার এখনও লড়াই করে যাচ্ছেন। তাদের অন্যতম অধিনায়ক গ্রেমি ক্রেমার। তার মাসিক বেতন বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫.৯৩ লাখ টাকা।

মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সাকিব আল হাসান: মাসিক বেতনের দিক থেকে দশম অবস্থানে বাংলাদেশের অধিনায়করা। টেস্ট ও সীমিত ওভারে আলাদা অধিনায়ক টাইগারদের। ওয়ানডে ক্রিকেটে দলের কাণ্ডারি মাশরাফি। আর টেস্ট ও টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের কাঁধে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) মাসিক পারিশ্রমিকে সর্বোচ্চ ‘এ প্লাস’ ক্যাটাগরিতে রয়েছেন মাশরাফি ও সাকিব। দুইজনের বেতন ৪ লাখ টাকা। চার সদস্যের ‘এ প্লাস’ ক্যাটাগরির বাকি দুইজন হলেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*