ব্রেকিং:এবার বাংলাদেশ সম্পর্কে ভারতীয় হাইকমিশনারের সরাসরি মন্তব্য

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, ভারত সুসময়ে ও দুঃসময়ে বাংলাদেশের পাশে থাকবে।তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধারা এবং ভারতীয় সেনারা এক সাথে যুদ্ধ করেছিলো এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্যে রক্ত দিয়েছিলো। আর ওইটাই ছিল ভারতীয়দের জন্যে মহান গর্বের মুহূর্ত।

শ্রিংলা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রী ইন্ধিরা গান্ধী ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে একটি শক্তিশালী ভীত বপণ করেছিলেন। বর্তমানে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে এই সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হয়েছে।

হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা রোববার রাত সাড়ে ৮টায় জেলার লোহাগড়া উপজেলার ইতনা ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামে শ্রী শ্রী দশ অবতার ও মনসা দেবীর মন্দিরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। ভারতীয় হাইকমিশনার শ্রীংলা সকলকে শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। আমরা সবাই আমাদের উৎসবগুলো এক সাথে পালন করি।’

তিনি বলেন, এই পূজা আমাদের সবার জন্য, বাংলাদেশ ভারতের জন্য শান্তি, সম্প্রীতি, সুস্থ্য আনন্দ বয়ে আনুক। ভারত বাংলাদেশের সম্পর্ক চিরদিন অবিচ্ছেদ্য থাকুক এটাই আমাদের কামনা। শ্রী শ্রী দশ অবতার ও মনসা দেবীর মন্দির কমিটির সভাপতি অসিত কুমার সাহার সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতের বিধান সভার জাতীয় নির্বাহী কমিটি ও বিজেপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অরুন হালদার,

নড়াইলের দায়িত্বপ্রাপ্ত জাতীয় সংসদের নারী সদস্য রোকসানা ইয়াসমিন ছুটি, নড়াইল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু, লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম আব্দুল হান্নান রুনু।

এর আগে হর্ষ বর্ধন শ্রীংলা রাত ৮টার দিকে দৌলতপুরে পৌঁছানোর পর তাকে শঙ্খ বাজিয়ে ও উলু ধ্বনি দিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেয়া হয়। পরে তিনি মন্দিরের উদ্বোধন করেন। মন্দির কমিটি সূত্রে জানা গেছে, ভারতীয় সরকারের আর্থিক সহযোগিতায় দৌলতপুর গ্রামের তরুণ শিল্পপতি সৌমেন কুমার সাহার বাড়িতে ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে এই মন্দিরটি নির্মিত হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*