ব্রেকিং নিউজঃ ফাঁস হলো জেনকা-ফখরুলের একান্ত আলাপ, নির্বাচনে যাওয়া নিয়ে এ কি বলল জাতিসংঘ !

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে নির্বাচনে যাওয়ার পরামর্শ দিলেন জাতিসংঘের সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল। গতকাল বাংলাদেশ সময় রাত আটটা থেকে ঘন্টাব্যাপী এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় নিউইয়র্কে, জাতিসংঘের সদর দপ্তরে। জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব মিরোস্লাভ জেনকার সঙ্গে বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব ছাড়াও তাবিথ আউয়াল এবং হুমায়ন কবীর উপস্থিত ছিলেন। তবে, বৈঠকের এক পর্যায়ে জেনকা মির্জা ফখরুলের সঙ্গে একান্ত বৈঠক করতে চান। তখন তাবিথ এবং হুমায়ন কবীর বেরিয়ে যান। বৈঠকের পর জাতিসংঘের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোন বিবৃতি দেয়া হয়নি। আর বিএনপি মহাসচিব বলেছেন, বাংলাদেশে আগামী নির্বাচন, মানবাধিকার এবং রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে কথা হয়েছে।

তবে বিএনপি মহাসচিব ঢাকায় তার আইনজীবীদের বলেছেন, জাতিসংঘ বিএনপিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাবার পরামর্শ দিয়েছেন। জেনকা বলেছেন, তোমরা নির্বাচন বর্জন করলে আমাদের কিছুই করার থাকবে না। নির্বাচনে গেলে অবশ্যই জাতিসংঘ পর্যবেক্ষক দল সেখানে যাবে।। বিএনপি মহাসচিব খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণগ্রেপ্তার নিয়েও কথা বলেন। মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, বিরোধী মতের লোকজনকে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

জেনকা বিষয়টি মহাসচিবকে অবহিত করবেন বলেও মন্তব্য করেন। তবে তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করেছে। এজন্য জাতিসংঘ বাংলাদেশের ব্যাপারে নমনীয় নীতি গ্রহণ করতে চায়।’ সহকারী মহাসচিব রোহিঙ্গা নিয়ে বিএনপির অবস্থান জানতে চান। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের অবস্থান এবং আমাদের অবস্থানের কোনো পার্থক্য নেই।’ সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, জেনকা বাংলাদেশে বর্তমান সরকারের নেতৃত্বে এমডিজি অর্জন এবং এসডিজি অর্জনের সাফল্য তুলে ধরে বলেন, ‘সরকার মানব উন্নয়নে ভালো কাজ করছে।

এ ব্যাপারে তোমাদের বক্তব্য কী?’ জবাবে মির্জা ফখরুল অবশ্য স্বীকার করেন যে, ‘বেশ কিছু ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে।’ কিন্তু দুর্নীতি এবং মানিবাধিকার পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি ঘটেছে বলে বিএনপি মহাসচিব মন্তব্য করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, নির্বাচনের ব্যাপারে জেনকা বিএনপির অবস্থান জানতে চান।

এ সময় বিএনপি মহাসচিব ৫ দফা প্রস্তাব জেনকার কাছে দেন। ৫ দফা প্রস্তাবে ছিল, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন, নির্বাচন কমিশন পনঃগঠন, নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন ইত্যাদি। সহকারী মহাসচিব বলেন, ‘এইসব দাবী দাওয়া নিয়ে রাজনৈতিক সংলাপ তোমাদের মধ্যেই হওয়া উচিত। তবে, আমরা মনে করি তোমাদের নির্বাচনে যাওয়া উচিত। তোমরা নির্বাচনে গেলে পর্যবেক্ষকরা অভিযোগের বিষয়গুলো দেখতে পারবে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের জন্য নির্বাচনে যাওয়া দূরূহ হয়ে যাচ্ছে। নির্বাচনে যাওয়ার জন্য আমাদের ন্যূনতম কিছু অর্জন প্রয়োজন।’ মির্জা ফখরুলকে সহকারী মহাসচিব বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে সরকারের প্রতিনিধিরা আসছে, তখন সরকারের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন তিনি।

বাংলা ইনসাইডার

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*